বাগমারায় করোনা রোগীর চিকিৎসা শুরু; অর্থমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা

21

লালমাই বার্তা ডেস্ক ।। অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম মুস্তফা কামাল এমপি’র আন্তরিকতায় ও আবুল খায়ের গ্রুপের সহযোগিতায় কুমিল্লার লালমাই উপজেলার বাগমারা ২০ শয্যা হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা শুরু হয়েছে। ২৮ এপ্রিল বুধবার সন্ধ্যায় ওই হাসপাতালে মমিনুল ইসলাম (৬০) নামের একজন করোনা পজেটিভ রোগী ভর্তি হয়েছেন। তিনি উপজেলার বাগমারা উত্তর ইউনিয়নের চেঙ্গাহাটা গ্রামের মৃত দুলা মিয়ার পুত্র। তার শ্বাসকষ্ট ও কাঁশি রয়েছে। তবে তার অক্সিজেন লেভেল ৯৫ বলে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। গত ২৬ এপ্রিল তার করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। এক সপ্তাহ আগে তার করোনার নমুনা সংগ্রহ করেন স্বাস্থ্যকর্মী উজ্জল সিংহ।

হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ডিউটিরত উপ-সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার রবিউল আলম বৃহস্পতিবার সকালে জানান, করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসার পরপরই রোগী মমিনুল ইসলাম কে কিছু পরীক্ষার জন্য কুমিল্লার একটি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পরীক্ষা শেষে বুধবার সন্ধ্যায় তাকে বাগমারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভর্তির সময় তাকে চিকিৎসা দিয়েছেন মেডিকেল অফিসার সোহাগ চক্রবর্তী স্যার। মমিনুল ইসলাম এই হাসপাতালের প্রথম করোনা রোগী।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল দুপুরে অর্থমন্ত্রীর পক্ষে বাগমারা হাসপাতালে করোনা ইউনিট (আইসিইউ সেবাসহ) উদ্বোধন করেন লালমাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মালেক, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম সারওয়ার, বাগমারা ২০ শয্যা হাসপাতালের আরএমও ডাঃ আনোয়ার উল্যাহ, লালমাই উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) শারমিন আরা ও লালমাই থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আইয়ুব। ওই সময় আবুল খায়ের গ্রুপের বিভাগীর অফিসার শাহ আলমসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

লালমাই উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মজুমদার বলেন, আমাদের নেতা অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম মুস্তফা কামাল এমপি মহোদয়ের আন্তরিকতায় বাগমারা হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা হচ্ছে। মন্ত্রী মহোদয়সহ স্বাস্থ্য বিভাগ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আমরা লালমাইবাসী কৃতজ্ঞ।

বাগমারা ২০ শয্যা হাসপাতালের আরএমও ডাঃ আনোয়ার উল্যাহ লালমাই বার্তা কে বলেন, কভিড-১৯ পজেটিভ রোগী ভর্তির মধ্য দিয়ে মূলত এই হাসপাতালে করোনা রোগীর চিকিৎসা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো। হাসপাতালটিতে একসঙ্গে ১০ জন করোনা রোগীর অক্সিজেন সেবা দেওয়া সম্ভব। একই সাথে আরো ১২জন করোনা পজেটিভ রোগীকে আইসোলেশনে রাখা যাবে।

উল্লেখ্য ২০১৭ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি প্রয়াত স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম মুস্তফা কামাল এমপি বাগমারা ২০ শয্যা হাসপাতালের আউটডোর সেবা উদ্বোধন করেন। দীর্ঘ ৪ বছর অতিবাহিত হলেও জনবল সংকটের কারনে হাসপাতালটিতে ইনডোর সেবা চালু করা সম্ভব হয়নি। তবে গত ২২ এপ্রিল করোনা রোগীদের সেবা দিতে অর্থমন্ত্রীর উদ্যোগে হাসপাতালটিতে ২টি আইসিইউ শয্যা, ২টি হাইপ্লো নেজাল ক্যানুলা, ৩টি অক্সিজেন কনসেন্ট্রোটর, ১টি বাইপেপ ভেন্টিলেটর, ১টি সিপেপ ভেন্টিলেটর, ১২টি সিলিন্ডার সম্বলিত সেন্ট্রাল অক্সিজেন, ইসিজি ও এক্সরে মেশিন, ১০টি অত্যাধুনিক পেশেন্ট মনিটর, ১টি অটোক্ল্যাভ মেশিন, ১টি ল্যারিংগোস্কোপ, ২টি বৈদ্যুতিক সাকার মেশিন ও ১০টি স্পেশাল শয্যা স্থাপন করা হয়েছে।