গৈয়ারভাঙ্গা স্কুলের সভাপতি হলেন খায়ের মজুমদার

34

সংবাদদাতা: গৈয়ারভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বেলঘর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান ও বেলঘর উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল খায়ের মজুমদার। ৩০ আগস্ট অভিভাবক সদস্য, শিক্ষক প্রতিনিধি, দাতা সদস্যদের অংশগ্রহনে নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। নবনির্বাচিত সভাপতি ওই বিদ্যালয়ের এসএসসি-৮২ ব্যাচের প্রাক্তন ছাত্র। তিনি এর আগেও বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে দুইবার দায়িত্ব পালন করেছেন।
জানা যায়, গত ২৮ জুলাই লালমাই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও প্রিজাইডিং অফিসার রোকসানা আক্তার গৈয়ারভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করেন। তফসিল অনুযায়ী ২৪ আগস্ট নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ৪টি পদে মাত্র ৪জন মনোনয়নপত্র দাখিল ও বৈধ হওয়ায় ২৪ আগস্ট ৪জনকে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় অভিভাবক সদস্য হিসেবে নির্বাচিত ঘোষনা করা হয়। অভিভাবক সদস্যরা হলেন: আবদুল মান্নান (উত্তডা), মাইনুল ইসলাম মজুমদার (আশেকের তুলাতুলী), মিজানুর রহমান (নিশ্চিন্তপুর) ও আবদুস সাত্তার (উন্দানিয়া)। সংরক্ষিত নারী অভিভাবক সদস্য পদে নাজমা বেগম (নিশ্চিন্তপুর) নির্বাচিত হয়েছেন।
শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন বশিরুল হক মজুমদার, জসিম উদ্দিন মজুমদার ও সজল রানী রায়। দাতা সদস্য মনোনীত হয়েছেন মোস্তফা কামাল।
গত ৩০ আগস্ট প্রিজাইডিং অফিসারের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ৪জন অভিভাবক সদস্য, ৩জন শিক্ষক প্রতিনিধি ও ১জন দাতা সদস্য সভাপতি পদে নিজেদের পছন্দের প্রার্থীকে গোপনে ভোট দেন। সংরক্ষিত নারী অভিভাবক সদস্য অনপুস্থিত ছিলেন। ভোটের ফলাফলে সাবেক চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মজুমদার ৪ ভোট পান এবং ইঞ্জিনিয়ার মাইনুল ইসলাম ৪ ভোট পান। পরে বিধি অনুযায়ী প্রিজাইডিং অফিসার ভোটারদের উপস্থিতিতে লটারীর আয়োজন করেন। লটারীতে নাম উঠায় আবুল খায়ের মজুমদার কে সভাপতি পদে নির্বাচিত ঘোষনা করেন প্রিজাইডিং অফিসার।
এর আগে ২০১৬ সাল থেকে ৩ মেয়াদে সভাপতি ছিলেন স্থানীয় নিশ্চিন্তপুর গ্রামের শাহ আলম। এবছর সভাপতি পদে তাকে কেউ ভোট দেননি।
গৈয়ারভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল হাসেম মজুমদার নবনির্বাচিত সভাপতিসহ ম্যানেজিং কমিটির সকলকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।