গরীব-অসহায়কে সাহায্য করার সময় সেলফি তুললে শাস্তি

316

সেলফি তোলার সময় বজায় থাকছে না সামাজিক দূরত্ব। তাই গরীব বা অসহায় মানুষকে সাহায্য করার পর তার সঙ্গে ছবি তোলার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারতের রাজস্থানের কোটা জেলা প্রশাসন। কোটার জেলা প্রশাসকের বক্তব্য, “সেলফি তোলার মোহে অনেকেই ভুলে যাচ্ছেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা। তাই বাধ্য হয়ে সেলফিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে জেলা প্রশাসন।”

কেউ কোনও গরীব মানুষের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন, কেউ বা দরিদ্রের হাতে চাল-ডালের মতো খাদ্যবস্তু তুলে দিচ্ছেন, আবার কোথাও হয়তো কোনও ভিক্ষুকের কাছে সামান্য ফল পৌঁছে দিচ্ছে একদল যুবক। সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলেই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে ভারত কিংবা বাংলাদেশের এমন হাজারো ছবি। বেশিরভাগ ছবি দেখলেই মনে হবে কাউকে সাহায্য করাটা গৌণ। ছবি তোলাটাই যেন মূল উদ্দেশ্য! এর ফলে যাকে দান করছেন সেই সহায়-সম্বলহীন মানুষটাকে যে সামাজিক সমস্যায় পড়তে হতে পারে, সে কথা আমাদের মাথায় আসে না!

তাছাড়া, বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস মহামারীতে ছবি তোলার সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টিও মেনে চলা হয় না। এর ফলে একদিকে যেমন সামাজিক অবক্ষয় হচ্ছে, অন্যদিকে তেমনি করোনা ছড়ানোর ঝুঁকিও থাকছে।

‘কাউকে দান করেছি, দেখানোটা তো আমার প্রাপ্য। সেটা কেন ছাড়বো?’ তথাকথিত দানবীরদের এই মানসিকতার জন্যই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার বড়সড় ঝুঁকি থাকছে।

করোনা-মোকাবেলায় বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার প্রতি আসক্তি। এই ঝুঁকি থেকে বাঁচতে এই নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোটা প্রশাসন। সাহায্যকারীদের উদ্দেশ্যে তাদের বার্তা- নিঃসন্দেহে আপনারা সাহায্য করে মানুষের উপকার করছেন। সেটা করুন। কিন্তু, কোনওভাবেই খাবার বিতরণের সময় সেলফি তোলা যাবে না এবং সর্বদা নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে কাজ করতে হবে।

সূত্রঃ সংবাদ প্রতিদিন